কঠিন মন্দায় ইউরোপের অর্থনীতি

ইউরোপের বিভিন্ন দেশে প্রতিদিনই বাড়ছে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা।  দেশগুলোতে লকডাউনসহ বিভিন্ন উপায়ে বিধিনিষেধ আরোপ করা সত্বেও কোনোভাবেই অঞ্চলটির করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসছে না  । এর সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে প্রাণহানিও। করোনা নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে কোণঠাসা এখন ইউরোপের অর্থনীতি । এবং তা আবারো মন্দার দিকে যাচ্ছে।

আইএইচএস মার্কিট প্রকাশিত জরিপে দেখা গেছে, নভেম্বরে ইউরোজোনের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড ব্যাপকভাবে কমে গেছে। বিভিন্ন দেশে লকডাউনে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সেবাখাত। ইউরোজোনের ১৯ টি দেশে নভেম্বরে পিএমআই সূচক কমে গিয়ে হয় ৪৫.১ পয়েন্ট, যা অক্টোবরে ছিল ৫০.০ পয়েন্ট।

কঠিন মন্দায় ইউরোপের অর্থনীতি
কঠিন মন্দায় ইউরোপের অর্থনীতি

এ সূচক ৫০ পয়েন্টের বেশি থাকলে তা প্রবৃদ্ধি ধরা হয়।  আর তা যদি নিচে থাকে তবে তাকে  সংকোচন হিসেবে বিবেচনা করা হয় । প্রতিষ্ঠানটির ভাষ্য অনুযায়ী , এটি স্পষ্ট যে ইউরোজোনের দেশগুলোর অর্থনীতি চতুর্থ প্রান্তিকে আবারও মন্দায় নামছে। যদিও বছরের মাঝামাঝিতে কিছুটা প্রবৃদ্ধি দেখা গিয়েছিল।

আইএইচএস মার্কিটের প্রধান অর্থনীতিবিদ ক্রিস উইলিয়ামসন বলেন, ‘করোনার দ্বিতীয় দফা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণের নানা প্রচেষ্টার মধ্যেই ইউরোজোনের অর্থনীতি আবারও তলানিতে নেমেছে।’

 তিনি বলেন, ‘অর্থনীতি নতুন করে নিম্নমুখী হওয়া এই অঞ্চলের জন্য বড় ধরনের আঘাত। বলার অপেক্ষা রাখে না পুনরুদ্ধার দীর্ঘায়িত হবে।’

সংস্থাটির পূর্বাভাসে বলা হয়, ২০২০ সালে ইউরোজোনের অর্থনীতি ইতিহাসের সর্বোচ্চ ৭.৪ শতাংশ সংকুচিত হবে। তবে তা ২০২১ সালে ৩.৭ শতাংশ পুনরুদ্ধারে ফিরবে। ইউরোপের অন্যতম বৃহৎ অর্থনৈতিক দেশ ব্রিটেনেরও পিএমআই সূচকও নভেম্বরে কমে হয়েছে ৪৭.৪ পয়েন্ট, যা অক্টোবরে ছিল ৫২.১ পয়েন্ট। এটি পাঁচ মাসে সর্বনিম্ন। করোনার নতুন ঢেউ আসায় দেশটির ব্যাবসায়িক কর্মকাণ্ড আবারও তলানিতে নেমেছে। এরই মধ্যে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন চার সপ্তাহের

50% LikesVS
50% Dislikes

Leave a Reply

Share