কার্ডধারী ফ্রিল্যান্সাররা ব্যাংক ঋণ পাবেন

দেশে বসে অনলাইনে কাজ করে বিদেশি মুদ্রা অর্জন করছেন, এমন ফ্রিল্যান্সারদের ভার্চ্যুয়াল আইডি কার্ড বা পরিচয়পত্র দিচ্ছে সরকার। এবার এসব ফ্রিল্যান্সারকে ক্রেডিট কার্ড ও ঋণসুবিধা প্রদানের উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এ জন্য ব্যাংকগুলোকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংক সম্প্রতি প্রজ্ঞাপন জারি করে ব্যাংকগুলোকে নির্দেশনা দেয়। এতে বলা হয়, তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক শিল্পের মধ্যে ফ্রিল্যান্সারদের আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে অর্জিত বৈদেশিক মুদ্রা প্রতিনিয়ত বাড়ছে। এই আয় ইতিমধ্যে দেশের অর্থনীতিতে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখতে শুরু করেছে।

কার্ডধারী ফ্রিল্যান্সাররা ব্যাংক ঋণ পাবেন
কার্ডধারী ফ্রিল্যান্সাররা ব্যাংক ঋণ পাবেন

২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত দেশে পরিণত করার লক্ষ্যে সরকার ফ্রিল্যান্সিং খাতে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ মানবসম্পদ ও উদ্যোক্তা তৈরি, কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং বিনিয়োগ বাড়াতে বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছে। তথ্যপ্রযুক্তি খাতে পারদর্শী ফ্রিল্যান্সারদের সামাজিক ও প্রাতিষ্ঠানিক স্বীকৃতি প্রদানের জন্য ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগ তথ্যপ্রযুক্তি খাতের ফ্রিল্যান্সারদের ভার্চ্যুয়াল আইডি কার্ড প্রদানের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রজ্ঞাপনে আরও বলা হয়, ভার্চ্যুয়াল আইডি কার্ডধারী ফ্রিল্যান্সারদের সহজে ঋণসুবিধা ও ক্রেডিট কার্ড সুবিধা দেওয়া হলে সম্ভাবনাময় ফ্রিল্যান্সিং খাত যথাযথভাবে বিকশিত হওয়ার সুযোগ পাবে। এর ফলে সরকারের লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সাররা জাতীয় অর্থনীতিতে অবদান রাখতে পারবেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত মাসে ফ্রিল্যান্সারদের আইডি কার্ড প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। কর্মসংস্থান, উপার্জন বা দক্ষতার প্রমাণ হিসেবে ফ্রিল্যান্সিং কার্ডটি ব্যবহার করা যাবে। এ কার্ডে ফ্রিল্যান্সারদের জন্য ব্যাংকিং বা ভিসার আবেদন, বাসা বা অফিসভাড়া, এমনকি বাচ্চাদের স্কুলে ভর্তির মতো বিষয়গুলো সহজ করবে। দেশের প্রায় সাড়ে ছয় লাখ ফ্রিল্যান্সার এই পরিচয়পত্র পাবেন।

50% LikesVS
50% Dislikes

Leave a Reply

Share